৯৯৯ নম্বরের ৯৭ শতাংশ কলই ‘অপ্রয়োজনীয়’

0
70
৯৯৯; এই একটি নম্বরেই মিলছে ফায়ার সার্ভিস, অ্যাম্বুলেন্স ও জরম্নরি পুলিশিসেবা। নাগরিকদের জরম্নরিসেবা দেয়ার লক্ষ্যে গত বছরের ১২ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর নম্বরটিতে সারাদেশ থেকেই বেশ সাড়া মিলছে।
তবে সংশিস্নষ্টরা বলছেন, নম্বরটিতে সেবা চাওয়ার তুলনায় কৌতূহলবশত এবং অনর্থক বস্ন্যাংক কলের সংখ্যাই বেশি আসছে।

গত ১২ ডিসেম্বর থেকে শুরম্ন করে চলতি বছরের ৬ জানুয়ারি পর্যন্ত্ম সর্বশেষ প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, জরম্নরিসেবার নম্বর ‘৯৯৯’-এ ফোন কলের সংখ্যা ছিল ৪ লাখ ৪৬ হাজার ৭৬টি। সে হিসাবে দিনপ্রতি কলের সংখ্যা ১৭ হাজারেরও বেশি। এর মধ্যে মাত্র ১২ হাজার কলের মাধ্যমে সেবা দেয়া হয়েছে। যা মোট কলের মাত্র ২ দশমিক ৬৯ শতাংশ!
মোট কলের অর্ধেকের বেশি অর্থাৎ ২ লাখ ৫৯ হাজার কলই ছিল বস্ন্যাংক। এ ছাড়া অন্যান্য মিথ্যা বা ভুল কলের পাশাপাশি ৫৫ হাজার ৮৮৩টি ছিল বিভিন্ন তথ্য জানতে চেয়ে।
জরম্নরিসেবা ‘৯৯৯’ কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যায়, উদ্বোধনের পর থেকে সাহায্যের জন্য খুবই কম কল এসেছে। প্রথম দিকে ‘৯৯৯’ সেবা শুরম্ন হওয়ার ঘটনাটি নিশ্চিত হওয়ার জন্য কলের সংখ্যা ছিল বেশি। সব মিলিয়ে প্রতিদিন সারাদেশ থেকে আসা অন্ত্মত ১০ থেকে ১৫ হাজার কল রিসিভ করা হচ্ছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পুলিশের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, ‘৯৯৯’ নম্বরে একসঙ্গে ১২০টি কল রিসিভ করা সম্ভব। বর্তমানে কন্ট্রোল রম্নমে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ১২০ জন দায়িত্ব পালন করছেন। আগামী ২-৩ বছরে এ বিভাগের সদস্য সংখ্যা ৫০০ জনে উন্নীত করার পরিকল্পনা রয়েছে। তবে বেশির ভাগ কলই অপ্রয়োজনীয়।
পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক বলেন, উদ্বোধনের পর থেকে এখন পর্যন্ত্ম ৯৯৯ নম্বরে ব্যাপক সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। কে কোন এলাকা থেকে কল করছেন সব তথ্যই কন্ট্রোল রম্নমের স্ক্রিনে ভেসে ওঠে।
সেবামুখী-গণমুখী পুলিশি সেবার অংশহিসেবে ৯৯৯ চালু করা হয়েছে উলেস্নখ করে তিনি বলেন, পর্যায়ক্রমে এ সেবা আরও বিস্ত্মৃত করা হবে। পরবর্তী সময়ে সোশ্যাল মিডিয়াতেও এ সেবা চালু করা হবে। গণমুখী পুলিশি ব্যবস্থায় অপরাধ দমনে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে।
সেবাটি উদ্বোধনের সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও বলেছিলেন, ‘নাগরিক সব সুবিধাকে সহজলভ্য করে আগামীর দেশ গড়তে পরিকল্পনা বাস্ত্মবায়ন করছে আওয়ামী লীগ সরকার। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আদলে প্রযুক্তিসেবা পাবে দেশবাসী।
এর আগে ২০১৬ সালের অক্টোবর মাসে ৯৯৯ নম্বরের সেবাটি পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা হয়। বর্তমানে সম্পূর্ণ টোলমুক্ত ৯৯৯ নম্বরে কল করে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও অ্যাম্বুলেন্স সেবা পাচ্ছে মানুষ।